ধামসোনা ইউনিয়নের জনগণের উন্নয়নে কাজ করতে চান: হাজী মোঃ আবু তাহের

ইমদাদুল হক, আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি: ঢাকার সাভারস্থ আশুলিয়ায় প্রায় পাঁচ দশকের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী আলহাজ্ব মোঃ আবু তাহের। দীর্ঘ ৪৬ বছরের এই রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে স্বচ্ছতার সাথে আওয়ামী লীগ এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন প্রদত্ত দায়িত্ব পালন করে এসেছেন। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে সাভার উপজেলার স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ইচ্ছাপোষণ করেছেন তিনি।

কথা হয় প্রচারবিমুখ এই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সাথে। এই প্রতিবেদককে তিনি জানালেন একজন রাজনীতিবিদ থেকে কেনো তিনি জনপ্রতিনিধি হতে চাচ্ছেন। তিনি বলেন, তখন ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। সময়টা ১৯৭১। ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক ভাষণ শুনতে লাখো মানুষের ভিতর তিনিও ছিলেন। মূলত সেই ভাষণে অনুপ্রাণিত হয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে বিশ্বাসী হয়ে আওয়ামী লীগকে মনেপ্রাণে ভালোবাসতে শুরু করেন।

তবে নিজের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের শুরুটা সেই ১৯৭৫ সালে জানালেন হাজী আবু তাহের। ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত ধামসোনা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন। ১৯৭৯ থেকে ১৯৮২ পর্যন্ত ধামসোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য, ১৯৯০ থেকে ২০০০ পর্যন্ত ধামসোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, ২০০১ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত ঢাকা জেলা উত্তর কৃষক লীগের সহ-সভাপতি এবং ২০১৫ থেকে ২০২০ পর্যন্ত সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দলীয় দায়িত্ব পালন করেছেন।

জনপ্রতিনিধি হবার ইচ্ছেটা কেনো জাগলো এব্যাপারে জানালেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে বলেছেন, ত্যাগী কর্মীদেরকেই ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হবে। এতগুলো বছর সৎ এবং নিষ্ঠার সাথে দল প্রদত্ত দায়িত্ব পালন করে এসেছি। আমার এলাকা স্বনির্ভর ধামসোনা বাসীর আরও অধিকতর উন্নয়নের জন্যই মূলত আমি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ইচ্ছাপোষণ করেছি।

একজন জনপ্রতিনিধি চাইলে তার এলাকার সামগ্রিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে। এ দৃষ্টিকোণ থেকেই আমি স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পেতে আশাবাদী। দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে কি করবেন এব্যাপারে তিনি জানান, যেহেতু আমার বাড়ি ধামসোনা ইউনিয়নের কাইচাবাড়ি গ্রামে।

এখানেই বেড়ে উঠায় সবার সুখ-দুঃখের সাথে জড়িত আমি। তাদের কি প্রয়োজন এবং তা কিভাবে করতে হবে সেসব ব্যাপারে আমার চেয়ে ভালো কেউ জানবে না। দীর্ঘদিন থেকেই যেকেউ সমস্যায় পড়লে আমার কাছে চলে আসে, আমি আমার সাধ্যমতো চেষ্টা করি তাদের সমস্যা নিরসনে। আর ধামসোনা ইউনিয়ন একটা শিল্প এলাকা আপনারা জানেন।

এখানে রয়েছে ডিইপিজেড। বিভিন্ন এলাকার মানুষ এখানে বসবাস করে। তাদের যেকোনও সমস্যায়ও ইতোপূর্বে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। তাদের বাড়ি ভাড়ার বিষয়েও সর্বোচ্চ ছাড় দেই এবং অন্যদেরকেও দিতে বলি। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আমাকে দলীয় মনোনয়ন দেন তাহলে আরও ভালোভাবে এই ইউনিয়ন বাসীর উন্নয়নে কাজ করে যাবো।

স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম অনেক ভালো কাজ করছেন জানিয়ে হাজী মোঃ আবু তাহের বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান আমার ছোট ভাইয়ের মতো। সে ও এলাকার অনেক উন্নয়ন করেছে। আমি যদি নির্বাচিত হতে পারি তবে আমার দীর্ঘ ৪৬ বছরের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতার আলোকে আমার ইউনিয়নের জন্য আরও ভালো কাজ করতে পারবো।

এপ্রসঙ্গে তিনি জানান, বর্তমানে মাদকের ভয়াবহতা রয়েছে, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড এবং বেড়ে উঠা কিশোর গ্যাং এর অব্যাহত তান্ডব নিরসনে কাজ করবো জিরো টলারেন্সে। ইভটিজিং এবং বাল্যবিবাহ রোধে অনেক আগে থেকে কাজ করে চলেছি। জলাবদ্ধতা নিরসনে এবং জলাশয় দখলকারীদের বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করবেন বলেও জানান তিনি।

১৯৮৪ সালে স্নাতক সম্পন্ন করা হাজী মোঃ আবু তাহের স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়নের কাইচাবাড়ি গ্রামে ১৯৫৯ সালের ৩১ মে জন্মগ্রহন করেন। মরহুম হাজী পিয়ার আলী ও মোছাঃ ছালেহা খাতুন এর সাত সন্তানের ভিতর তৃতীয় সন্তান তিনি। ব্যক্তিগত জীবনে দুই পুত্র সন্তানের জনক। তাঁর বড় ছেলে একজন চিকিৎসক এবং ছোট ছেলে অধ্যয়নরত।

খবরটি শেয়ার করুন....
© All rights reserved  2021 DesherGarjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar